বিনিয়োগকারীরা যাতে ঘরে বসেই পুঁজিবাজারের সকল কাজ সম্পন্ন করতে পারে সেজন্য অনলাইন ভিত্তিক নানা সুবিধা নিয়ে হাজির হয়েছে দেশের সর্ববৃহৎ ও সবচাইতে জনপ্রিয় ব্রোকারেজ হাউজ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত ‘লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ লিমিটেড’।

প্রতিষ্ঠানটির আইব্রোকার (iBroker) অনলাইন অ্যাপের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীরা বিশ্বের যে কোন স্থান থেকে তার নিজের পোর্টফোলিও, লেজার ব্যালেন্স, আইপিও আবেদন, অর্থ জমা ও উত্তোলনসহ ট্যাক্স সার্টিফিকেট নিজেরা বের করে নিতে পারবেন। ব্রোকারেজ হাউজে এসে যেসব কাজ করতে হয় এ অ্যাপের মাধ্যমে ঘরে বসেই সেসব সুবিধা পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকতা খন্দকার সাফ্ফাত রেজা।

তিনি জানান, ‘আমাদের নিজস্ব অ্যাপ আইব্রোকার (iBroker), ট্রেডএক্সপ্রেস (TradeXpress), ফাইন্যান্সিয়াল পোর্টাল (Financial Portal), কল সেন্টার এবং যেকোনো সময়ে অনলাইনে টাকা জমা ও উত্তোলনের সুবিধা প্রদান করে পুঁজিবাজারকে মানুষের হাতের মুঠোয় নিয়ে এসেছে। শেয়ার ও শেয়ার লেনদেন বিষয়ক সকল পরিষেবা প্রদান ও পরিচালনায় লংকাবাংলা সিকিউরিটিজের সমন্বিত ও সুশৃঙ্ক্ষল ব্যবস্থাপনা বর্তমানে ঢাকা, নারায়াণগঞ্জ, চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, বরিশাল ও সিলেটের ১০টি শাখায় সকল গ্রাহকদের জন্য সুপ্রতিষ্ঠিত। শেয়ার ও শেয়ার লেনদেন বিষয়ক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করতে এখন আমাদের কোন গ্রাহককেই ব্রোকারজে হাউজে যেতে হবে না। নিরাপদে, ঘরে বসেই সকল প্রকার লেনদেন প্রক্রিয়া সম্পাদন ও পুঁজিবাজারের সকল তথ্যাদি বিবেচনা ও পরামর্শ আমাদের পরিষেবা থেকে সহজেই পাওয়া সম্ভব’।

জানা যায়, ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকেই উন্নত ও সমসাময়িক গ্রাহকসেবা নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে ক্রমাগত নতুনতর সেবা উপস্থাপন করে আসছে প্রতিষ্ঠানটি। বৈশ্বিক মহামারি কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার অনেক আগে থেকেই লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ লিমিটেড এসকল অনলাইন ভিত্তিক, ডিজিটালাইজড সমন্বিত পরিষেবা সমূহ প্রতিষ্ঠিত এবং সফলভাবে পরিচালনা করে আসছে। প্রতিষ্ঠানটির রয়েছে দক্ষ গবেষণা ও বিশ্লেষণকর্মী এবং গ্রাহক ব্যবস্থাপনা।

কভিড-১৯ এর এই সময়ে ব্রোকারেজ হাউজে না এসেই ঘরে বসে সম্পূর্ণ ডিজিটাল পদ্ধতির মাধ্যমে লংকাবাংলা
সিকিউরিটিজের গ্রাহকেরা লেনদেন করতে পারছেন। বিনিয়োগকারীরা লংকাবাংলার মাধ্যমে কাস্টমার এক্সপেরিয়েন্স সেন্টার, লিন্ডা চ্যাটবড, আইব্রোকার অ্যাপ, ভার্চয়াল অ্যাকাউন্ট এবং ফিনান্সিয়াল পোর্টালের সুবিধা পাচ্ছেন।

কাস্টমার এক্সপেরিয়েন্স সেন্টারের মাধ্যমে গ্রাহকেরা অনলাইনেই বিও একাউন্ট খোলা, কেনা-বেচার অর্ডার দেয়া, পোর্টফোলিও তথ্য জানা, লেজারের বিস্তারিত তথ্য, আই ব্রোকার ও ডিএসই মোবাইল অ্যাপের পাসওয়ার্ড আপডেট ও পরিবর্তন, ট্রেড এক্সপ্রেস অ্যাপের মাধমে লেনদেন, বিকাশ পেমেন্ট, অর্থ উত্তোলন, নগদ লভ্যাংশ সংক্রান্ত সমস্যার সমাধান, আইপিও আবেদন, ইমেইল ও মোবাইল নম্বর আপডেট, লিড কল করাসহ মার্জিন ঋণ ও পুঞ্জিভূত সুদের তথ্য জানতে পারবেন গ্রাহকেরা।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন কথোপকথনমূলক চ্যাটবট লিন্ডার মাধ্যমে লংকাবাংলার গ্রাহকেরা বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর জানতে পারবেন। এটি ব্যবহার করে ফেসবুক, লংকাবাংলার ওয়েবসাইট ও ফিন্যান্সিয়াল পোর্টালের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীরা তাদের কাঙ্খিত প্রশ্নে উত্তর পেয়ে যাবেন। বিও হিসাব খোলার জন্য প্রয়োজনীয় তথ্যসহ লংকাবাংলার গ্রাহকদের পোর্টফোলিও স্ট্যাটাস, লেজার ব্যালেন্স, ক্রয় সক্ষমতার তথ্য, আইপিওর বর্তমান অবস্থা, নিজের হিসাব সংক্রান্ত যে কোনো তথ্য লিন্ডা চ্যাটবটের মাধ্যমে জানা যাবে।

ভার্চুয়াল হিসাব নম্বর বরাদ্দ করে অর্থ প্রদানকারীদের সনাক্ত করা হয়ে থাকে। এটি গ্রাহকের রেফারেন্স নম্বর হিসেবে কাজ করে। স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের মাধ্যমে লংকাবাংলার সব গ্রাহককে এজন্য একটি ইউনিক হিসাব নম্বর দেয়া হয় যার মাধ্যমে সরাসরি গ্রাহক তার বিও হিসাবের বিপরীতে অর্থ জমা করতে পারবেন। ভার্চুয়াল মাধ্যমে আধা ঘন্টার মধ্যেই বিও হিসাবে অর্থ জমা হয়ে যায়।

এছাড়া প্রতিষ্ঠানটির রয়েছে নিজস্ব সার্ভার যেখানে বিনিয়োগকারীদের প্রয়োজনীয় সকল তথ্য সুরক্ষিত থাকে। বিনিয়োগকারীদের হিসাবে যে কোন ধরনের অসঙ্গতি পরিলক্ষিত হলে প্রতিষ্ঠানটির সংশ্লিষ্ট বিভাগে যোগাযোগ করলে তাৎক্ষণিকভাবে সব ধরনের অসামঞ্জস্যতা দূরীভূত করা হয় বলে জানা গেছে।

The post ঘরে বসেই শেয়ারবাজারের সব কাজ করার সুবিধা লংকাবাংলায় first appeared on ArthoSuchak.

Leave a Reply

%d bloggers like this: