<

p style=”text-align: justify;”>দুর্ভাগ্য যেন পিছুই ছাড়ছে না লিগ ওয়ান চ্যাম্পিয়ন প্যারিস সেইন্ট জার্মেই-পিএসজির। ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই হেরে বসে নেইমার-এমবাপে, ডি মারিয়াবিহীন পিএসজি। এরপর দ্বিতীয় ম্যাচেই শক্তিশালী মার্শেইয়ের বিপক্ষে মাঠে নামে নেইমার-ডি মারিয়াকে নিয়ে। তবে ঘরের মাঠ পার্ক ডে প্রিন্সে মার্শেইয়ের কাছে ১-০ গোলে হেরে বসেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। ম্যাচের শেষ দিকেদুই দলের খেলোয়াড়রা হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ায় পাঁচ খেলোয়াড়কে লাল কার্ড দেখিয়ে পরিস্থিত শান্ত করেন রেফারি। এর মধ্যে নেইমার জুনিয়রসহ পিএসজির হয়ে লাল কার্ড দেখেছেন আরও দুই খেলোয়াড়। আর মার্শেইয়ের দুই খেলোয়াড় লাল কার্ড দেখেছেন।

ফ্রেঞ্চ ক্লাসিকোতে টানা ২১ ম্যাচ পর পিএসজিকে হারাল মার্শেই। আর এর মধ্য দিয়ে ১৯৮৪/৮৫ মৌসুমের পর প্রথমবারের মতো মৌসুমের প্রথম দুই ম্যাচেই হারের স্বাদ পেল প্যারিস সেইন্ট জার্মেই। মৌসুমের প্রথম দুই ম্যাচেই হেরে লিগ টেবলের ১৮ নম্বরে অবস্থান করেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন পিএসজি।

করোনাভাইরাস থেকে সেরে উঠে সদ্যই দলের সঙ্গে অনুশীলনে যোগ দেন নেইমার জুনিয়র এবং অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া। দলের প্রথম ম্যাচে হারের পর আর বেশি বিশ্রামে সময় কাটাননি এই তারকারা। তবে তারা মাঠে ফিরেও দলকে জয়ের ধারায় ফেরাতে পারল না। লিগ ওয়ানে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচেও হারতে হয়েছে ২০১৯/২০ মৌসুমের চ্যাম্পিয়নয়দের।

২০২০/২১ নতুন মৌসুমের শুরুতে দলের প্রধান খেলোয়াড়রা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আইসোলেশনে চলে যায় পিএসজির। প্রথম অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, লিওনার্দো পারদেস এরপর একে একে কেইলর নাভাস, নেইমার জুনিয়র এবং সর্বশেষ কিলিয়ান এমবাপেও করোনায় আক্রান্ত হন। এর মধ্যে নেইমার, ডি মারিয়া এবং লিওনার্দো পারদেস সুস্থ হয়ে দলে যোগ দিলেও এখনও দলের বাইরেই আছেন কেইলর নাভাস এবং কিলিয়ান এমবাপে।

আর এমন অবস্থায় মার্শেইকে আতিথ্য দেয় পিএসজি। ম্যাচের প্রথমার্ধের ৩১ মিনিটে ফ্রিকিক থেকে দুর্দান্ত এক ক্রস করেন মার্শেইয়ের দিমিত্রি পায়েট, এদিকে ফ্লোরিয়ান থাউভিনকে পিএসজির কোনো খেলোয়াড় লক্ষ্য না করায় ডি বক্সের ভেতরে ঢুকে পড়েন তিনি। আর দুর্দান্ত এক ভলিতে বল জালে পিএসজির জালে জড়ান তিনি। প্রথমার্ধেই ১-০’তে এগিয়ে যায় মার্শেই।

ম্যাচের ৬১ মিনিটে অবশ্য সমতায় ফিরেছিল পিএসজি। ইদ্রিস গুয়ের দুর্দান্ত এক পাস থেকে গোল করেন ডি মারিয়া। তবে গোল হলেও অফসাইডের কারণে তা বাতিল হয়ে যায়। এর ঠিক মিনিট খানেক পর ম্যাচে ২-০’তে এগিয়ে যায় মার্শেই। তবে একি? আবারও গোল বাতিল হয়ে যায়। পায়েটের নেওয়া কর্নার থেকে শট নেন থাউভিন, তবে তার শট ঠেকিয়ে দেন সার্জিও রিকো। এরপর ফিরতি বলে আবারও শট নেন থাউভিন এবার বল জালে জড়ান কিন্তু রিপ্লেতে দেখা মেলে শট নেওয়ার সময় অফসাইডে ছিলেন থাউভিন। তাই আবারও গোল বাতিল হয়ে যায়।

ম্যাচের ৬৮ মিনিটে সহজ একটি গোলের সুযোগ হাতছাড়া করেন নেইমার নিজেই। করোনাভাইরাস থেকে সুস্থ হওয়ার পর নিজেকে ফিরে পাওয়ার সুযোগই পাননি এই ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার। এরপর ৭৫ মিনিটে আবারও নেইমার সুযোগ হাতছাড়া করেন দলকে সমতায় ফেরানোর। ডি বক্সের ভেতরে পাওয়া বল গোলবরাবর শট না মেরে নেইমার পাঠিয়ে দেন গোলবারের ওপর দিয়ে। শেষ দিকে আরও কিছু সুযোগ হাতছাড়া করে পিএসজি আর তাতেই ২১ ম্যাচ পর ফ্রেঞ্চ ক্লাসিকো জয়ের স্বাদ পেল মার্শেই।

ম্যাচের শেষ দিকে দুই দলের খেলোয়াড়রা হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়লে রেফারি দুই দলের মোট পাঁচ খেলোয়াড়কে লাল কার্ড দেখান। এর মধ্যে পিএসজির রয়েছেন নেইমার জুনিয়র, লেভিন কুরজাওয়া এবং লিওনার্দো পারদেস। আর মার্শেইয়ের রয়েছেন জর্ডান অ্যামভি এবং ডারিও বেন্দেত্তো। লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়ার সময় মার্শেইয়ের এক খেলোয়াড়কে উদ্দেশ্য করে বর্ণবাদী মন্তব্য করেছেন নেইমার-এমনটাও জানা গেছে।

The post নেইমারসহ পাঁচ লাল কার্ডের ম্যাচে পিএসজিকে হারাল মার্শেই appeared first on Sarabangla | Breaking News | Sports | Entertainment.

Leave a Reply

%d bloggers like this: