ঢাকাই চলচ্চিত্রের এক সময়ের বেশ আলোচিত একটি নাম মুনমুন। ১৯৯৭ সালে মৌমাছি ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে চলচ্চিত্র অঙ্গনে যাত্রা শুরু তার। ১৯৯৭-২০০৩ সাল পর্যন্ত বেশ দাপটের সাথেই অভিনয় করেছেন এই নায়িকা। আলোচনায় থাকার পাশাপাশি হয়েছেন বেশ সমালোচিতও। আর তাই ২০০৩ সালের পরে চলচ্চিত্র থেকে নিজেকে অনেকটা গুটিয়ে নেন মুনমুন।

এদিকে ব্যক্তিগত জীবনে মীর মোশাররফ হোসেন রোবেনের সঙ্গে প্রেমে জড়ান এই নায়িকা। প্রেমের পর তা পরিণয়ে রূপ নেয়। তাদের সংসারে রয়েছে দুই সন্তান। কিন্তু তাদের এই ভালোবাসার সংসার এক যুগ পার না হতেই ভেঙে যায়। গত কোরবানির ঈদের পরদিন এই দম্পতির তালাক কার্যকর হয়। স্বামী মীর মোশাররফ হোসেন রোবেনের নির্যাতন ও স্বার্থপরতার শিকার হয়ে তাকে তালাক দিয়েছেন বলে জানান মুনমুন।

মীর মোশাররফ রোবেনের সঙ্গে মুনমুনের দীর্ঘ দশ বছরের সংসার। বিচ্ছেদের বিষয়ে মোশাররফের প্রতি তার তেমন কোনো অভিযোগ নেই উল্লেখ করে মুনমুন বলেন, রোবেন শুধু তার নিজের স্বার্থের কথাই চিন্তা করেছে। সংসারের প্রতি তার কোন মনোযোগ ছিলো না। সে সিনেমা বানাতে চাইতো আমি অর্থের যোগান দিতাম। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হতো না। যার কারণে আমি তাকে বলতাম সংসারের দিকে মনোযোগ দিতে। সে দিতো না।

শারীরিক নির্যাতন করতো বলেও জানান মুনমুন। তিনি বলেন, তাকে আমি আমার নিজের একটি ফ্ল্যাট ছেড়ে দিয়েছিলাম স্টুডিওর জন্য। বিভিন্নভাবে টাকা-পয়সা দিতাম। আমিও চাইতাম সে উঠুক, সে নায়ক হতে চাইতো। আমিও সর্বোচ্চ চেষ্টা করতাম, কিন্তু আমাকে শারীরিক নির্যাতন করতো এটা মেনে নিতে পারতাম না।

চার বছর সেপারেশনে ছিলেন জানিয়ে মুনমুন বলেন, ১০ বছরের মধ্যে চার বছর সেপারেশনে ছিলাম। একটা সময় সে ফিল করতে পেরেছে আমাকে তার দরকার, এটা আমাকে জানায়। তারপর ফিরে আসে। তবে ফিরে আসার পরেও সেই আগের মতো হয়ে যায়। সেই টাকা-পয়সা নেওয়া, মারধর করা। আর কোনো কাজ নেই তার। নিজের চিন্তায় অস্থির সে, অথচ আমাদের দুইজনের একটি সন্তান রয়েছে সেদিকে তার মনোযোগ নেই। এসব কথা বলাই যেত না তাকে।

এসব কিছু ভেবেই মুনমুন বিচ্ছেদের পথে হেটেছেন। মুনমুন বলেন, ‘সব মিলিয়ে দেখলাম রোবেনের সঙ্গে আর একসঙ্গে থাকা সম্ভব না। আসলে শারীরিক নির্যাতনের মাত্রা বেড়েই যাচ্ছিল। যার কারণে আমি তাকে ডিভোর্সের সিদ্ধান্ত নেই এবং কোরবানি ঈদের একদিন পরে সেটা কার্যকর হয়।

প্রসঙ্গত, সিলেটের একজন ব্যবসায়ীর সঙ্গে ২০০৩ সালে মুনমুনের প্রথম বিয়ে হয়। এরপর যুক্তরাজ্যে চলে যান তিনি। ২০০৬ সালে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। পরে, ২০১০ সালে তিনি দ্বিতীয় বিয়ে করেন। এই দম্পতির দুই পুত্র সন্তান রয়েছে।

অর্থসূচক/এএ/এমএস

The post বিচ্ছেদ নিয়ে মুখ খুললেন মুনমুন first appeared on ArthoSuchak.

Leave a Reply

%d bloggers like this: