কোয়ারেন্টিনসহ বেঁধে দেয়া নানা শর্ত মেনে সফরে যেতে রাজি নয় বাংলাদেশ, বিসিবি সভাপতির এমন কড়া হুঁশিয়ারির পর নড়েচড়ে বসেছে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড। এরইমধ্যে কয়েক দফা বৈঠকে বসেছে দেশটির বোর্ড কর্তারা।

লঙ্কান বোর্ড জানায়, নুন্যতম ২ সপ্তাহ কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদেরকে। এবং কোয়ারেন্টিনে থাকাকালীন অনুশীলন করতে পারবেননা টাইগার ক্রিকেটাররা, এমন শর্তও বেঁধে দেয় তারা। এছাড়া, ৩০ জনের বেশি সফর করতে পারবেনা বলেও জানায় লঙ্কান বোর্ড। এতসব শর্তের কথা শুনে বেশ বিরক্ত হয় বিসিবি।

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন গণমাধ্যমে জানান, ওদের এতো শর্ত মেনে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলা সম্ভব নয়। ওরা যেসব শর্তের কথা বলছে, এগুলো বিরল। অন্যান্য দেশগুলোও ক্রিকেট খেলছে। তারা তো সবক্ষেত্রে ছাড় দেয়ারই চেষ্টা করছে।

বিসিবি বসের কড়া জবাবের খবর পৌঁছে গেছে শ্রীলঙ্কায়ও। এরমধ্যেই নানা ধরণের বক্তব্য দিচ্ছে তারা। লঙ্কান বোর্ডের এক কর্তা জানান, শর্তগুলো যেহেতু বেঁধে দিয়েছে শ্রীলঙ্কার স্বাস্থ্য বিভাগ তাই তাদের কিছু করার নেই।

তবে ভেতরে ভেতরে সিরিজ আয়োজনের সর্বোচ্চ চেষ্টাই করছে লঙ্কান বোর্ড। স্বাস্থ্য বিভাগের সঙ্গে জরুরী বৈঠক করেছেন বোর্ডের শীর্ষ কয়েকজন কর্তা। এসএলসি সভাপতি শাম্মী সিলভার নেতৃত্বে একটি দল আর্মি হেডকোয়ার্টারে বৈঠক করেছে দেশটির সেনাবাহিনী প্রধান লে. জেনারেল শাবেন্দ্র সিলভার সঙ্গেও।

সেখানে তারা বেশকিছু সিদ্ধান্ত নেন। বাংলাদেশকে বিকল্প কিছু প্রস্তাব দেয়ার কথা ভাবছেন লঙ্কানরা, এমনটাই জানা গেছে।

বাংলাদেশের দেয়া প্রস্তাবনা অনুযায়ী ৭দিনই কোয়ারেন্টিন রাখার কথা ভাবছে লঙ্কানরা। তবে এখানে তারা বেঁধে দিতে চায় নতুন শর্ত। লঙ্কায় রওনা দেয়ার আগে বাংলাদেশে ৭দিন কোয়ারেন্টিনে রাখতে হবে ক্রিকেটারদেরকে। এরপরই দেশটিতে সফর করতে পারবে তারা। সেখানে গিয়েও ৭দিন থাকতে হবে কোয়ারেন্টিনে।

নিজেদের আরো একটি শর্ত থেকে পিছু হটছে শ্রীলঙ্কা। তারা বলেছিল, কোয়ারেন্টিনে থাকাকালীন অনুশীলন করতে পারবেনা বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। তবে এবার তারা বলছে, কোয়ারেন্টিনকালীন অনুশীলন করা যাবে, তবে সেক্ষেত্রে মানতে হবে সামাজিক দূরত্ব। অর্থ্যাৎ, ৭দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে পুরোদমে দলীয় অনুশীলন করতে পারবেন মুশফিক-মুমিনুলরা।

নতুন ছক অনুযায়ী, লঙ্কায় গিয়ে হাম্বানটোটায় অবস্থান করতে হবে টাইগারদেরকে। কোয়ারেন্টিন শেষেই কেবল ক্যান্ডির উদ্দেশ্যে রওনা দিতে পারবে দল, যেখানে শ্রীলঙ্কা এ দলের বিপক্ষে একটি তিনদিনের ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ।

একইসঙ্গে বাংলাদেশের সফরের জন্য সদস্যসংখ্যা বাড়ানোরও চিন্তা ভাবনা করছে তারা। শুরুতে তারা জানিয়েছিল, ৩০জনের বেশি যেতে পারবেনা সেখানে। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ৩৫ থেকে ৪১জনকে সফরের অনুমতি দেয়ার কথা ভাবছে তারা।

যাই হোক, নতুন প্রস্তাবনার কথা এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়নি বিসিবিকে। তবে হাম্বানটোটার কথায় আপত্তি জানাতে পারে ক্রিকেট বোর্ড। কারণ সেখান থেকে অনুশীলনের মাঠ বেশ দূরে। তাছাড়া অন্যান্য প্রস্তাবনাগুলো নিয়ে কি প্রতিক্রিয়া দেখায় বিসিবি, সেটিই এখন দেখার বিষয়‍!

The post বিসিবিকে যেসব প্রস্তাব দিতে যাচ্ছে শ্রীলঙ্কা appeared first on bd24report.com.

Leave a Reply

%d bloggers like this: