সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে মিচেল স্টার্কের শুরুর ধাক্কার পরে জনি বেয়ারস্টোর শতকে ঘুরে দাঁড়িয়েছে ইংল্যান্ড। বেয়ারস্টোর শতকের সাথে ক্রিস ওকস ও স্যাম বিলিংসের অর্ধশতকে ইংলিশরা সংগ্রহ করেছে ৩০২ রান। আজও একাদশে নেই অজি তারকা স্টিভ স্মিথ।

বেয়ারস্টোর শতকে ইংল্যান্ডের লড়াকু সংগ্রহ

ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় ইংল্যান্ড। টসের সিদ্ধান্ত সঠিক ছিল নাকি ভুল তা ভাবার সময় পাওয়ার আগেই মাঠে নামতে হয় ইয়ন মরগানকে। কারণ দল যে প্রথম দুই বলেই দুইটি উইকেট হারিয়ে বসেছে। প্রথম বলে জেসন রয়কে ফেরানোর পরে দ্বিতীয় বলে জো রুটকে সাজঘরে পাঠান স্টার্ক।

তৃতীয় উইকেটে দ্রুতই ৬৭ রান সংগ্রহ করেন মরগান ও বেয়ারস্টো। ২৩ রান করে অ্যাডাম জাম্পার বলে স্টার্কের তালুবন্দী হয়ে সাজঘরে ফেরেন ইংলিশ অধিনায়ক মরগান। মাত্র ৮ রান করে জাম্পার বলে অধিনায়ককে অনুসরণ করে জস বাটলার।

পঞ্চম উইকেটে ইনিংসের সর্বোচ্চ জুটি গড়েন বেয়ারস্টো ও বিলিংস। বিলিংস আউট হলে ভেঙে যায় তাদের ১১৪ রানের জুটি। মিচেল মার্শের তালুবন্দী হয়ে জাম্পার তৃতীয় শিকার হওয়ার আগে তিনি করেন ৫৮ বলে ৫৭ রান। বিলিংসের ইনিংসে ছিল চারটি চার ও দুইটি ছয়।

বিলিংস সাজঘরের ফেরার পরে আর বেশিক্ষণ থাকেননি বেয়ারস্টোও। ১০ রান পরেই বিদায় নেন শতক হাঁকানো এই ব্যাটসম্যান। কিছুটা ধীর গতিতে খেলে ১২৬ বলে ১১২ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। তার ১৪টি চার ও দুইটি ছয়ের মারের ইনিংসে সমাপ্তি ঘটে প্যাট কামিন্সের বলে বোল্ড হয়ে।

বেয়ারস্টোর শতকে ইংল্যান্ডের লড়াকু সংগ্রহ

সপ্তম উইকেটে জুটি গড়েন ক্রিস ওকস ও টম কারান। এই দুইজনে বলের সাথে পাল্লা দিয়ে রান তুলতে থাকেন। ১৯ বলে ১৯ রান করে কারান সাজঘরের পথ ধরেন স্টার্কের তৃতীয় শিকার হয়ে। ঝড়ো শতক তুলে নেন ওকস। ৩৯ বলে ৫৩ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি।

৫০ ওভার শেষে ৩০২ রানের সংগ্রহ পেয়েছে ইংল্যান্ড। অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে জাম্পা ৫১ রানের বিনিময়ে তিনটি উইকেট ও ৭৪ রানের বিনিময়ে স্টার্ক তিনটি উইকেট শিকার করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ইংল্যান্ড ৩০২/৭  (৫০ ওভার)
বেয়ারস্টো ১১২, বিলিংস ৫৭, ওকস ৫৩*, মরগান ২৩;
জাম্পা ৩/৫১, স্টার্ক ৩/৭৪।

The post বেয়ারস্টোর শতকে ইংল্যান্ডের লড়াকু সংগ্রহ appeared first on বিডিক্রিকটাইম.

Leave a Reply

%d bloggers like this: