কাঠমাণ্ডু: ভূমিকম্পে বিধ্বস্ত হয়ে গিয়েছিল সম্পূর্ণ। সেই স্মৃতি উস্কে তিব্বতের সীমান্ত ঘেঁষে নেপালে ভয়াবহ ভূমিধস। প্রবল বৃষ্টির জেরেই এই ধস বলে জানা গিয়েছে। এখনও পর্যন্ত অন্তত ১১ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে, নিখোঁজ আরও অনেকে। নেপালের পাহাড়ি অঞ্চলে এই ঘটনা ঘটেছে শনিবার রাতে।

ভূমিকম্পের পত নতুন করে তৈরি হয়েছে বহু ঘর-বাড়ি। আর সেখানেই নামছে ধস। এদিকে আগে থেকেই আর্থিক সংকটের মধ্যে রয়েছে নেপাল। থাবা বসিয়েছে করোনাও। এখনও পর্যন্ত করোনায় ৩৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে সে দেশে।

বারহাবিস গ্রামের অন্তত ২০ জনের কোনও খোঁজ নেই ধস নামার পর থেকে। একধাক্কায় জলের তোড়ে ভেসে গিয়েছে অন্তত ২৮টা বাড়ি। শনিবার রাতে সেই ধস নামে। ছুটে যান উদ্ধারকারীরা। তৎপরতার সঙ্গে চলছে উদ্ধারকাজ। তবে উদ্ধারকারীদের মতে নিখোঁজ ব্যক্তিদের জীবিত অবস্থায় খুঁজে বের করা কঠিন।

ঘটনাস্থলে রয়েছে নেপালের সেনাবাহিনী ও আর্মড পুলিশ। তবে আবহাওয়ার জন্য বাধা পাচ্ছে উদ্ধারকাজও।

সিন্ধুপালচক নামে যে এলাকায় ধস নেমেছে, সেখানে ভূমিকম্পের প্রভাব ছিল ভয়াবহ। নেপাল জুড়ে ২০১৫-র ভূমিকম্পে ৮৭০০ জনের মৃত্যু হয়েছিল, তার মধ্যে এই সিন্ধুপালচকেই ছিল ৩৪৪০ জন।

প্রত্যেক বছরই নেপালে ভূমিধসে বহু মানুষের মৃত্যু হয়। অগস্টের মাঝামাঝি সময়ে লিডি গ্রামে ধস নেম ৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছিল। পাহাড়ের ধাপে ধাপে তৈরি করা ৩৭ টি বাড়ি নিশ্চিহ্ন হয়ে যায়।

এই সিন্ধুপালচকে ভূমিকম্পের জেরে একাধিক ফাটল তৈরি হয়েছিল। সেগুলিই বৃষ্টির জেরে আরও খারাপ চেহারা ধারণ করেছে। ফলে, সাধারণ মানুষের প্রাণের ঝুঁকি আরও বেড়েছে। আসলে পাহাড়ি অঞ্চল এমনিতেই রহস্যে ভরা। তার মধ্যে ভূমিকম্প সবকিছু উল্টেপাল্টে গিয়েছে।

The post ভয়াবহ ভূমিধসে মৃত কমপক্ষে ১১, নিখোঁজ বহু

appeared first on Kolkata24x7 | Read Latest Bengali News, Breaking News in Bangla from West Bengal's Leading online Newspaper.

Leave a Reply

%d bloggers like this: