<

p style=”text-align: justify;”>ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় ও শেষ ওডিআই ম্যাচটি জমজমাট হয়ে ওঠে। রোমাঞ্চকর এই ম্যাচে শেষ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়া ম্যাচ জেতান গ্লেন ম্যাক্সওয়েল আর অ্যালেক্স ক্যারি। এই দুইয়ের জোড়া শতকে খাদের কিনারা থেকে উঠে এসে ৩০২ রান তাড়া করে অজিরা ম্যাচ জিতে নেয় তিন উইকেট হাতে রেখে। আর সেই সঙ্গে সিরিজ নিশ্চিত করে ২-১ ব্যবধানে।

এদিন ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে মাত্র ৭৩ রানে ৫ উইকেট হারানোর পর দলের হাল ধরেন অ্যালেক্স ক্যারি এবং গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। শেষ পর্যন্ত দলকে জয়ের বন্দরের স্পর্শ সমান দূরত্বে থাকতে ১১৪ বলে ১০৬ রানে ক্যারি এবং ৯০ বলে ১০৮ রান করে ফেরেন ম্যাক্স ওয়েল।

এর আগে মিচেল স্টার্কের অগ্নি ঝরা বলে ইনিংসের প্রথম দুই বলেই দুই উইকেট হারায় ইংলিশরা।  তারপর দলের হাল ধরেন দুর্দান্ত ফর্মে থাকা জনি বেয়ারেস্টো,তুলে নেন ক্যারিয়ারের ১০ম ওডিআই শতক। আর শেষ পর্যন্ত ১২৬ বলে ১১২ রান করে ফেরেন বেয়ারেস্টো। শেষদিকে ক্রিস ওকসের অর্ধশতকে ভর করে তিনশ ছাড়িয়ে যায় স্বাগতিকরা। ৩০৩ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে মাত্র ৭৩ রানে ৫ উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া। তখন মনে হচ্ছিল ইংলিশদের জয়টা কেবল সময়ের ব্যাপার। তবে এদিন ম্যাক্সওয়েল ঝড় বাকি ছিল তখনও। ক্যারিকে সঙ্গে নিয়ে দলকে জয়ের কাছে পৌছেই ফেরেন তিনি।

৩০৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চকে (১২) তুলে নেন ক্রিস ওকস। এরপর আগের দুই ম্যাচে জোফরা আর্চারকে সামলাতে না পারা ডেভিড ওয়ার্নার (২৪) ফেরেন দলীয় ৫১ রানে জো রুটের শিকার হয়ে কিন্তু তার আগে মার্নাস স্টইনিসকে (৪) তুলে নেন ওকস। চারে খেলা মারনাস লাবুশানে ২০ রান করে রান আউট হয়ে ফিরেছেন। আর অফ স্পিন দিয়ে মিচেল মার্শকেও উইকেটের পেছনে ক্যাচ বানান রুট। তখন দলীয় রান মাত্র ৭৩ দলের টপ অর্ডার এবং মিডিল অর্ডারের সবাই ফিরেছেন সাজঘরে। এরপর শুরু ম্যাক্সওয়েল-ক্যারির ব্যাট ভর করে অজিদের ঘুরে দাঁড়ানো।

আগ্রাসী মেজাজে রানের চাকা সচল রাখেন ব্যাট করতে নেমে। ৬ষ্ঠ উইকেটে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অজিদের হয়ে সর্বোচ্চ ২১২ রানের জুটি আনেন তারা। দলের জয় একরকম নিশ্চিত করে আউট হয়ে যান তারা। শেষে মিচেল স্টার্ক, প্যাট কামিন্স বাকি কাজটা সারেন।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে যাওয়া ইংল্যান্ডের শুরুটা ছিল আরও ভয়াবহ। ইনিংসের একদম প্রথম দুই বলেই উইকেট হারায় তারা। স্টার্কের বলে পয়েন্টে ক্যাচ দেন জেসন রয়। অধিনায়ক রুট এসে ড্রাইভ করতে গিয়ে লাইন মিস করে কাটা পড়েন এলবিডব্লিওতে। এরপর অধিনায়ক ইয়ন মরগানের সঙ্গে জুটি গড়েন বেয়ারেস্টো। তবে ৬৭ রানের জুটি গড়ে ফেরেন অধিনায়কও। এরপর স্যাম বিলিংসের সঙ্গে পঞ্চম উইকেটে শতরানের জুটি গড়ে দলকে বড় সংগ্রহের দিকেই রাখেন বেয়ারেস্টো।

শেষ পর্যন্ত ৫৮ বলে ৫৭ করে স্যাম বিলিংস ফিরেন জাম্পার বলে রিভার্স স্যুইপ করতে গিয়ে ক্যাচ দিয়ে। শেষদিকে ক্রিস ওকসের ৩৯ বলে ৫৩ রানের ঝড়ো ইনিংসে ৩০০ পার করে ইংলিশরা।

ম্যাচ রিপোর্ট:
ইল্যান্ড: ৩০২/৭ (জেসন রয় ০, জনি বেয়ারস্টো ১১২, জো রুট ০, ইয়ন মরগান ২৩, জশ বাটলার ৮, স্যাম বিলিংস ৫৭, ক্রিস ওকস ৫৩*, টম কারান ১৯, আদিল রশিদ ১১*; মিচেল স্টার্ক ৩/৭৪, জশ হ্যাজেলউডড ০/৬৮, প্যাট কামিন্স ১/৫৩, অ্যাডাম জ্যাম্পা ৩/৫১, মিচেল মার্শ ০/২৫, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ০/২৩)
অস্ট্রেলিয়া: ৩০৫/৭ (ডেভি ওয়ার্নার ২৪, অ্যারন ফিঞ্চ ১২, মার্কাস স্টয়নিস ৪, মার্নাস লাবুশেন ২০, মিচেল মার্শ ২, অ্যালেক্স ক্যারি ১০৬, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ১০৮, প্যাট কামিন্স ৪*, মিচেল স্টার্ক ১১*; ক্রিস ওকস ২/৪৬, জফরা আর্চার ১/৬০, মার্ক উড ০/৪০, জো রুট ২/৪৬, টম কারান ০/৪০, আদিল রশিদ ১/৬৮)
ম্যাচ ফলাফল: অস্ট্রেলিয়া ৩ উইকেটে জয়ী।
সিরিজ: ৩ ম্যাচের সিরিজে অস্ট্রেলিয়া ২-১ ব্যবধানে জয়ী।
ম্যান অব দা ম্যাচ: গ্লেন ম্যাক্সওয়েল।
ম্যাচ অব দা সিরিজ: গ্লেন ম্যাক্সওয়েল।

The post রোমাঞ্চকর জয়ে অজিদের সিরিজ জেতালেন ম্যাক্সওয়েল

appeared first on Sarabangla | Breaking News | Sports | Entertainment.

Leave a Reply

%d bloggers like this: