গত ছয় মাসে ব্যান্ডইউথের ব্যবহার ৭০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। দেশের ৩৮০টি উপজেলায় পৌঁছে গেছে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট। এই শক্ত অবকাঠামোর ওপর ভিত্তি করে দেশে এখন দুই হাজার জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ ব্যবহার হচ্ছে। সরকারের নীতিগত সমর্থনের কারণে দেশে এখন ডিজিটাল প্রযুক্তি পণ্যও উৎপাদন শুরু হয়েছে।

শনিবার রাতে চতুর্থ শিল্প বিপ্লব এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ’ শীর্ষক ওয়েবিনারে দেয়া বক্তব্যে এমনটা জানালেন আইসটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

হার্ডওয়্যার, সফটওয়্যার, সার্ভিস এবং গবেষণা ও উন্নয়নে সরকার গুরুত্বের সঙ্গে কাজ করছে জানিয়ে আইসটি গভঃ অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত এই ওয়েবিনারে প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রশাসনিক খাতে আরো বেশি ডিজিটাল নেতৃত্ব তৈরি করতে গত ২২ জানুয়ারি রাষ্ট্রপতির কাছে আইসিটি ক্যাডারের আবেদন তুলে ধরেছিলাম। উনি এ ব্যাপারে সম্মতি দিয়েছেন। আইসটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের সম্মতি নিয়ে একটি সামারি তৈরি করে আবেদনটি প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে পাঠিয়েছি। করোনার কারণে দেরি হলেও আশা করি প্রধানমন্ত্রী আমাদের এই প্রাণের দাবিটি পূরণ করবেন।

২০৪১ সালে উন্নত জ্ঞানভিত্তিক বাংলাদেশ গড়তে পদ্মাসেতুর ওপারে শিবচরে তৈরি হবে শেখ হাসিনা ইনস্টিটিউট ফর ফ্রন্টিয়ার টেকনলোজি তথা ‘শিফট’। এখান থেকেই বিশ্বসেরা তথ্যপ্রযুক্তিবিদ তৈরি হবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন জুনাইদ আহমেদ পলক।

ফোরামের সভাপতি মোঃ তমিজুদ্দিনের সভাপতিত্বে আইসিটি বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব এন এম জিয়াউল আলম এবং প্রকৌশলী সবুর খান বক্তব্য রাখেন।

The post শিগগিরি ‘আইসিটি ক্যাডার’ স্বীকৃতির প্রত্যাশা appeared first on Digi Bangla.

Leave a Reply

%d bloggers like this: