<

p style=”text-align: justify;”>মৃত্যুর আগে মাদকাসক্ত হয়ে পড়েছিলেন বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত। আর তাকে মাদকের নেশা ধরিয়েছিলেন বলিউডের এক নামী পরিচালক। ভারতীয় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি)’র জেরায় এমনটাই জানিয়েছেন সুশান্ত মামলায় গ্রেফতারকৃত রিয়া চক্রবর্তী।

ভারতীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এনসিবি’র গোয়েন্দাদের কাছে সুশান্তের আলোচিত প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তী জানিয়েছেন, বলিউডের এক নামী পরিচালকই সুশান্তকে মাদকের নেশা ধরিয়েছিলেন। সুশান্তের সঙ্গে সম্পর্কে থাকাকালীন সময়ে একথা জানতে পেরেছিলেন তিনি। সুশান্তই তাকে বলেছিলেন, ওই পরিচালক তাকে বলিউডের বিভিন্ন পার্টিতে নিয়ে যেতেন। সেখানে কোকেন, এলএসডি, মারিজুয়ানার মতো মাদক সেবন করা হত। তবে তদন্তের স্বার্থে পরিচালকের নামটি প্রকাশ করা হয়নি। রিয়া আরও জানিয়েছেন, সুশান্তের লোনাভলার ফার্মহাউসের পার্টিতে তার অনেক বলিউডি বন্ধু আসতেন। সেখানেও অবাধে চলত নেশা। বলিউডের দু’জন ক্ষমতাবান ব্যক্তি নাকি সুশান্তকে মাদক দিতেন। যদিও রিয়া দাবি করেছেন, সুশান্তের লোনাভলার ফার্মহাউসের পার্টিতে তিনি কখনোই যেতেন না।

এদিকে সুশান্তের মৃত্যুর তদন্তে মাদক সংশ্লিষ্টতায় এবার প্রকাশ পেল বলিউড অভিনেতা সাইফ আলী খানের কন্যা অভিনেত্রী সারা আলী খান’র নাম। তাই এনসিবি’র নজরে এখন সারা আলী খান। জানা গেছে, এনসিবি’র জিজ্ঞাসাবাদের সময়ে রিয়া চক্রবর্তী যাদের নাম উল্লেখ করেছেন তাদের মধ্যে রয়েছে সারা আলী খানের নামও। এছাড়াও রয়েছেন আরো দুই বলিউড অভিনেত্রী রকুল প্রীত ও সিমন খামবাট্টা। রিয়া বলেছেন, সারা-সহ এই দুই অভিনেত্রী নিয়মিতই মাদক নিতেন। ২০ পাতার লম্বা বিবৃতিতে এই তিন অভিনেত্রীর নাম বিশেষভাবে নিয়েছেন রিয়া।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর তদন্তে মাদক যোগের অভিযোগে বান্দ্রা থেকে করণজিৎ ওরফে কে জে নামে আরও একজনকে গ্রেফতার করেছেন এনসিবি’র গোয়েন্দারা। সুশান্ত মামলায় মাদক যোগ সন্দেহে এখনও পর্যন্ত মোট ১১ জনকে গ্রেপ্তার করেছে এনসিবি। যার মধ্যে রিয়া চক্রবর্তী ছাড়াও রয়েছেন তার ভাই সৌভিক, সুশান্তের হাউস ম্যানেজার স্যামুয়েল মিরান্ডা এবং গৃহকর্মী দীপেশ সাওয়ান্ত।

The post সুশান্তকে মাদকাসক্ত বানিয়েছেন বলিউডের এক নামী পরিচালক! appeared first on Sarabangla | Breaking News | Sports | Entertainment.

Leave a Reply

%d bloggers like this: